Bankim Chandra Chattopadhyay – Birthday Tribute

Bankim Chandra Chattopadhyay – Birthday Tribute

সাহিত্য_সম্রাটের_জন্মদিনের_শ্রদ্ধাঞ্জলি 💐🙏 – 𝑾𝒓𝒊𝒕𝒕𝒆𝒏 𝒃𝒚 Rai Das
আজ ২৬ শে জুন, আজকের দিন টাকে বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসের মাইল ফলক বলা হলেও অত্যুক্তি করা হবেনা। বাংলা সাহিত্যের নবজাগরনের পথিকৃৎ শ্রী বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের শুভ জন্মদিন আজ । ১৮৩৮ সালের আজকের দিনে উত্তর চব্বিশ পরগনার কাঁঠালপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি । বাবা যাদবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, যিনি ছিলেন পেশায় ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট এবং মা দুর্গাসুন্দরী দেবীর তৃতীয় সন্তান তিনি। ছোটবেলা দিকেই অনন্ত মেধার অধিকারী বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় হন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম স্নাতক । যার স্বীকৃতিস্বরূপ , তৎকালীন বঙ্গ সরকারের সচিব ইয়ং সাহেব বঙ্কিমচন্দ্রকে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের চাকরী গ্রহণ করতে অনুরোধে করেন। ১৮৫৮ খ্রিস্টাব্দে তিনি এই চাকরী নিয়ে তিনি পাড়ি দেন যশোরের উদ্দেশ্যে। সেখানেই আলাপ হয় দীনবন্ধু মিত্রের সাথে । হাত দেন প্রথম সাহিত্য রচনার কাজে । তাঁর প্রথম উপন্যাস প্রকাশিত হয় ইংরাজি ভাষায়, নাম Rajmohan’s wife, পান ভূয়সী প্রশংসা। সেই শুরু তারপর আর কখনো থেমে থাকেনি তাঁর কলম । তাঁর কলমের আঁচড়ে জন্ম নিয়েছে একের পর এক সব ভুবনজয়ী কৃষ্টি। দুর্গেশনন্দিনী , কপালকুন্ডলা, রাধারানী, রজনী, কৃষ্ণকান্তের উইল, রাজসিংহ, আনন্দমঠ, দেবী চৌধুরানীর মতো প্রায় পনেরোটির ও বেশী উপন্যাস তাঁর ঝুলিতে । এছাড়াও পুরাণ নিয়ে তাঁর কাজ বিশেষ ভাবে উল্লেখ্য। মাত্র পঞ্চান্ন বছর বয়সে ইহলোক ছেড়ে পাড়ি দেন পরলোকের পথে। তাঁর দেখিয়ে যাওয়া জীবন দর্শন আজও বাঙালীর পাথেয় । জীবন যন্ত্রণা নিয়ে তাঁর লেখা সীতারাম উপন্যাসের একাদশ খণ্ডের নিম্নলিখিত পঙক্তিটি তাঁর বলে যাওয়া অসংখ্য সত্যের একটি নমুনামাত্র যা আজকের দিনেও ভীষণ ভাবে প্রাসঙ্গিক ।
“ওপারে যে যন্ত্রণার কথা শুনিতে পাও, সে আমরা এই পার হইতে সঙ্গে করিয়া লইয়া যাই। আমাদের এ জন্মের সঞ্চিত পাপগুলি আমরা গাঁটরি বাঁধিয়া, বৈতরিণীর সেই ক্ষেয়ারীর ক্ষেয়ায় বোঝাই দিয়া, বিনা কড়িতে পার করিয়া লইয়া যাই। পরে যমালয়ে গিয়া গাঁটরি খুলিয়া ধীরে সুস্থে সেই ঐশ্বর্য্য একা একা ভোগ করি।”
শ্রী বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এর জন্মদিনে #boichoi এর তরফ থেকে শ্রদ্ধার্ঘ , প্রণাম জানাই ।

Leave a Reply

Quick Navigation
×
×

Cart